পায়ে হেঁটে লাদাখ যাত্রা আরামবাগের যুবক প্রদীপের

0
48

নিজস্ব প্রতিনিধি,বর্ধমানঃ অনেক সময় আমরা দেখেছি ভ্রমণ প্রিয় কিছু মানুষ বাইকে করে, না হলে সাইকেলে করে দেশ ভ্রমণে বেড়িয়েছেন। সঙ্গে কখনো পরিবেশ সচেতনতা আবার কখনো বৃক্ষরোপনের প্রয়োজনীয়তা সহ বিভিন্ন বিষয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতার বার্তা ছড়িয়ে দেন তারা। কিন্তু,এবার পায়ে হেঁটে আরামবাগ থেকে সুদূর লাদাখ যাত্রা করছেন প্রদীপ মণ্ডল নামে এক যুবক। আরামবাগের নতুন বাসস্ট্যাণ্ড সংলগ্ন একটি রেস্তোরাঁতে ওয়েটারের কাজ করেন তিনি। আরামবাগ থেকে লাদাখ যেতে প্রায় আড়াই হাজার কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে হবে তাকে। নারী সুরক্ষা প্রদান আর শিশুশ্রম বন্ধ করার বার্তা ছড়িয়ে দেবেন পথ চলতি মানুষের সঙ্গে সাক্ষাৎ হলেই। প্রদীপের মতে, দেশে পুরুষরা যেভাবে সুরক্ষিত সেভাবে মহিলারা কিন্তু সুরক্ষিত নন। দিনের বেলা সমস্যা খুব বিশেষ না হলেও রাতে একা রাস্তায় বেরোতে গেলে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় মহিলাদের। সাধারণ মানুষকে সচেতন করা প্রয়োজন। এছাড়াও টাকা রোজগারের আশায় প্রত্যন্ত অঞ্চলের ছোট ছোট শিশুদেরকে শ্রমিকের কাজে লাগানো হচ্ছে। নষ্ট হয়ে যাচ্ছে তাদের ছেলেবেলা। তাই সেই ছোট ছোট শিশুগুলোর ছেলেবেলাটা যাতে নষ্ট হয়ে না যায়, তারা যেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানমুখী হয়ে উঠতে পারে তারই বার্তা ছড়িয়ে দেবেন সকলের মধ্যে। শুক্রবার আরামবাগ থেকে যাত্রা শুরু করে শনিবার প্রদীপ মণ্ডল এসে পৌঁছেছেন পূর্ব বর্ধমানের রায়নার মিরেপোতা এলাকায়। ৯০ দিনের মধ্যে পৌঁছাতে চান তিনি লাদাক। নিজের সুরক্ষার জন্য ইতিমধ্যেই পুলিশ এবং প্রশাসনের থেকে অনুমতি নিয়েছেন। আর বাদবাকি সম্বল বলতে পথ চলতি মানুষের ভালোবাসা।

LEAVE A REPLY