আগ্নেয়াস্ত্র সহ গ্রেপ্তার চার দুষ্কৃতী,উদ্ধার ৮ কোটি টাকার সোনা রুপার অলংকার

0
42

নিজস্ব প্রতিনিধি,বাঁকুড়াঃ কোতুলপুর থানা ও হুগলির গোঘাট থানার পুলিশের যৌথ চেস্টায় স্থানীয় মানুষের সাহায্যে প্রচুর পরিমাণ সোনা উদ্ধার। চারটি পিস্তল সহ গ্রেফতার করা হয় চারজন দুষ্কৃতীকে।হুগলীর গোঘাট থানার খাটুল বাজার এলাকার ঘটনা। পুলিশ সুত্রে খবর, গতকাল রাতে একটি বাসে তিনটি সোনা ভর্তি ব্যাগ সহ চার দুষ্কৃতী বাস থেকে নেমে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় একটি ক্লাব এর সহযোগিতায় পুলিশ গ্রেফতা করে চার দুস্কৃতিকে।তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হয় প্রচুর পরিমাণ সোনা রূপার অলংকার সহ চারটি আগ্নেয়াস্ত। হুগলির ডানকুনি এলাকায় একটি সোনার দোকানে কর্মচারীদের মাথায় আগ্নেয়াস্ত্র ঠিকেয়ে ডাকাতি করে পালিয়ে যায় চার দুস্কৃতির। ধৃত অক্ষয় কুমার,অরুণ কুমার, সঞ্জীব কুমার দাস ও বিনয় দাস প্রত্যেকেই বিহারের ঔরঙ্গাবাদ ও গয়া এলাকার বাসিন্দা। ডাকাতির পর তড়িঘড়ি বাংলা ছাড়ার পরিকল্পনা ছিলো ধৃতদের। প্রথমে তারা বাইকে ডানকুনি থেকে সিঙ্গুর এলাকায় আসে।সেখান থেকে ট্রেনে আরামবাগ ও তারপর বাঁকুড়াগামী বাসে উঠে পড়ে।পুলিশ মনে করছে বাঁকুড়া হয়ে ঝাড়খণ্ড ও পরে বিহারে গিয়ে গা ঢাকা দেওয়ার পরিকল্পনা ছিল দুস্কৃতিদের।ধৃতদের খোঁজ তল্লাশি শুরু করে পুলিশ। বাঁকুড়ার কোতুলপুর এবং হুগলির গোঘাট থানার সীমান্ত এলাকায় করা হয় নাকা চেকিং। সীমান্ত পেরিয়ে ধৃতেরা কোনভাবেই যেন ভিন রাজ্যে যেতে না পারে সে কারণেই বাসে উঠে করা হচ্ছিল চিরুনি তল্লাশি। আর তাতেই পুলিশের জালে ধরা পড়ে চার দুস্কৃতি। নাকা চেকিং এর জেরে বিভিন্ন ভাবে পরিকল্পনা বদল করতে হয় দুস্কৃতিদের এমনটাই পুলিশ সুত্রে খবর। চেকিং চলাকালীন গোঘাটের খাটুল এলাকায় স্থানীয় চায়ের দোকানে চা খাওয়ার নাম করে বাস থেকে নেমে পড়ে চারজন দুস্কৃতি । সেখানেই পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে ধরা পড়ে যায় তারা। দুজন ডাকাত পালানোর চেষ্টা করলে সেখানে স্থানীয় ক্লাবের সদস্যরা ধাওয়া করে ধরে ফেলে তাদের।তিনটি ব্যাগ থেকে উদ্ধার হয় সোনার গহনার পাশাপাশি আগ্নেয়াস্ত্রও।চাঞ্চল্য পড়ে যায় এলাকায। স্থানীয়দের একটি ক্লাবে আটক করে রাখা হয়।পরে পুলিশ গিয়ে তাদের গেপ্তার করে। শুরু হয়েছে পুলিশী তদন্ত।ডাকাতির ঘটনায় আরো কেই যুক্ত রয়েছে কিনা ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে জানতে চাইছে পুলিশের তদন্তকারী দল। উদ্ধার হওয়া সোনা ও রুপার আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় ৮ কোটিরও বেশি বলে পুলিশ সুত্রে খবর।

LEAVE A REPLY