‘চুরি রুখতে ব্যবস্থা নিতে হবে রাজ্য সরকারকে’- বললেন কেন্দ্রীয় কয়লা মন্ত্রী প্রহ্লাদ জোশি

0
36

সংবাদদাতা,অন্ডালঃ ইসিএল এর খনি পরিদর্শন ও খনির ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার রূপরেখা তৈরি করতে বুধবার দুর্গাপুরে আসেন কেন্দ্রীয় কয়লা মন্ত্রী প্রহ্লাদ জোশি। বুধবার বিকেল চারটে দশ মিনিটে দিল্লি থেকে বিমানে অন্ডাল বিমানবন্দরে নামেন তিনি। তারপর সড়কপথে পৌঁছান দুর্গাপুর। সেখানে কয়লা মন্ত্রী রাত্রিবাস করেন ইস্পাত কারখানার অতিথিশালাতে। গতকাল বিমান বন্দরের বাইরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে কয়লামন্ত্রী প্রহ্লাদ জোশি জানান, খনি পরিদর্শনের পাশাপাশি কয়লা খনির ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার রূপরেখা তৈরি করাও এই সফরের উদ্দেশ্য। কয়লা খনিতে বিনিয়োগ প্রসঙ্গে বলেন,খনির জন্য জমি প্রয়োজন,যেমন জমি পাওয়া যাবে সেই পরিমাণ বিনিয়োগ আসবে বলে জানান তিনি। বৃহস্পতিবার সোনপুর বাজারি ও ঝাঁঝরা প্রজেক্ট পরিদর্শনে যান কয়লা মন্ত্রী। সকাল দশটা নাগাদ প্রথমে সোনপুর বাজারি পৌঁছান তিনি। সেখানে আদিবাসী নৃত্যের মাধ্যমে মন্ত্রীকে স্বাগত জানানো হয়। ভিউ পয়েন্ট থেকে প্রজেক্ট পরিদর্শন করার পাশাপাশি স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে কয়লা পরিবহন ব্যবস্থা (সাইলো সিস্টেম ) দেখেন। সেখান থেকে যান ঝাঁঝরা প্রজেক্ট-এ। পরিদর্শনের পাশাপাশি সোনপুর বাজারি ও ঝাঁঝরা প্রজেক্ট কার্যালয়ে তিনি আধিকারিকদের সাথে এদিন বৈঠকও করেন। সকালে খনি পরিদর্শনে যাওয়ার আগে ইস্পাত অতিথিশালার বাইরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন কয়লামন্ত্রী। কয়লা চুরি প্রসঙ্গে প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, এই বিষয়ে সিবিআই, ইডি তদন্ত চলছে । বিচারাধীন বিষয় নিয়ে কিছু বলবো না। তবে কয়লা চুরি বন্ধে রাজ্য সরকারকে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে হবে। কারণ খনি এলাকায় কয়লা চুরি হলে সিআইএসএফ পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করে। পাশাপাশি মন্ত্রী জানান,  এক বিলিয়ন টন কয়লা উৎপাদন করা লক্ষ্য রয়েছে। ২০২৫ সালের মধ্যে সেই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করা সম্ভব হবে বলে মন্ত্রী জানান। কেন্দ্রীয় কয়লামন্ত্রীর এই সফর কয়লা খনির ভবিষ্যতের পক্ষে খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের।

LEAVE A REPLY