মঞ্চ থেকে ফের বেলাগাম দিলীপ, তৃণমূলের নেতাদের পিছনে পেট্রল দেওয়ার নিদান

0
257

নিজস্ব প্রতিনিধি,বাঁকুড়া: কাল থেকে কৃষ্ণকে পাওয়া যাচ্ছিল না। সকালে রাস্তায় তার লাশ পাওয়া গেল। স্বাভাবিক ভাবে সন্দেহ হচ্ছে। কৃষ্ণ রাজনীতি করত তাই আমরা ধরে নিচ্ছি রাজনৈতিক কারনে তাঁকে খুন করা হয়েছে। এখানে একটা সরকার আছে। মানুষ সেই সরকারকে জিতিয়ে এনেছে শান্তিতে থাকবে বলে। কিন্তু রাজ্য জুড়ে ভয় ও হিংসার পরিবেশ তৈরী হচ্ছে। সরকারের দায়িত্ব মানুষকে সুরক্ষা দেওয়া। আজ বাঁকুড়ায় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা সঙ্কল্প মহামিছিলে ভয়মুক্ত বাংলা ও হিংসা মুক্ত রাজনীতি শির্ষক পদযাত্রায় যোগ দিয়ে ময়নায় বিজেপি কর্মীর অস্বাভাবিক মৃত্যু প্রসঙ্গে এই ভাষাতেই প্রতিক্রিয়া দিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার মহামিছিলে অংশ নিতে বাঁকুড়ায় বিজেপির কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বাঁকুড়ার হিন্দু হাইস্কুল ময়দান থেকে মিছিল শুরু হয়ে বাঁকুড়া বাজার পদক্ষিন করে মাচানতলা আকাশ মুক্তমঞ্চে শেষ হয়। দিলীপ ঘোষ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী সুভাষ সরকার, রাজ্য সহ সভাপতি সৌমিত্র খাঁ সহ বিজেপি নেতৃত্ব। শুখেন্দু শেখর রায় এর টুইট প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষের প্রতিক্রিয়া, তিনি স্বপ্ন দেখুন। আমরা বাস্তবে দাঁড়িয়ে কাজ করছি। সরকার দেশের স্বার্থে যা প্রয়োজন হবে সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে। তাঁরা দুশ্চিন্তা না করে বাংলার দিকে মন দিন। বাংলাও তো বিক্রি হয়ে যাচ্ছে। সিএএ নিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, আমাদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বিল পাস করে আইন তৈরী করেছেন। করোনার জন্যে এতদিন তা হয়নি। অনুকূল পরিবেশ তৈরী হলে আমরা আইন করেছি আমরাই তা লাগু করব। রাজ্যপালের অতি সক্রিয়তা প্রসঙ্গে বলেন, এখানের সরকার মোটেই সক্রিয় নয়। তাই একটু সক্রিয় হলেই তা অতি সক্রিয় বলে মনে হচ্ছে। আমাদের মনে হয় তিনি সংবিধান অনুযায়ী কাজ করছেন। আর এখানের সরকার সংবিধানকে আস্তাকুড়ে ফেলে দিতে চাইছে। তৃনমূল নেতাদের অগাধ সম্পত্তি প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষের বক্তব্য, যা সম্পত্তি লুঠ করেছে তার হিসাব মানুষ নেবেই। কাটমানি, সিন্ডিকেট, ভাগ বাঁটোয়ারার জন্যে গুলি চলছে, হত্যা হচ্ছে। কর্মী ও সাধারণ মানুষ তাদের পেটাচ্ছে। দলের ঝান্ডা নিয়ে যে যা খুশি করছে।
অনুপ্রবেশ প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষের বক্তব্য, বাংলায় এক হাজার কিমি সীমানা বেড়া দেওয়া হয়নি। এ রাজ্যের সরকার তা চাইছে না। হলে অনুপ্রবেশকারী আসতে পারবে না। তাদের নেতা সোনা নিয়ে যেতে পারবে না। আয় কমে যাবে। সে কারনে সিমি আল কায়দা ঢুকে পড়ছে এ রাজ্যে ।
মমতার বাংলা আকাদেমি পুরস্কার প্রাপ্তি নিয়ে দিলীপ ঘোষের বক্তব্য, কেউ পুরস্কার পান আবার কেউ পুরস্কার নেন। আমাদের মুখ্যমন্ত্রী পুরস্কার নেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির আসনে বসান তিনি আবার মুখ্যমন্ত্রীকে পি এইচ ডি দেন। যিনি তাঁকে আকাদেমি তে পাঠিয়েছেন তিনি তাঁকে পুরস্কার দিয়েছেন। ভালো লক্ষ্মন এটার প্রতিবাদ জানিয়েছেন শুভ বুদ্ধি সম্পন্ন মানুষ। অর্জুন সিং এর শিব মন্দিরে যাওয়া নিয়ে দিলীপ ঘোষের বক্তব্য, খুব ভালো কথা। ভগবান শিবের কাছে একজায়গায় সবাই আসুক। সবাই আশির্বাদ পাক। বাংলায় শান্তি আসুক। আমরা ছোঁয়াছুঁয়ির রাজনীতি করিনা। ফের বেলাগাম বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আলুর দাম বৃদ্ধির জন্যে রাজ্য সরকারকে দায়ী করে মঞ্চ থেকেই তৃনমূল নেতাদের পিছনে পেট্রল দেওয়ার নিদান দিলেন দিলীপ ঘোষ। ভয় মুক্ত বাংলা,হিংসা মুক্ত রাজনীতির দাবি তুলে আজ বাঁকুড়ার হিন্দু হাইস্কুল ময়দান থেকে পদযাত্রা করে বাঁকুড়ার মাচানতলায় আকাশ মুক্ত মঞ্চে সভা করেন দিলীপ ঘোষ। ওই সভার মঞ্চ থেকেই দিলীপ ঘোষ বলেন, আলু ১৫- ২০ টাকা থেকে আজ ৩৫ টাকায় পৌঁছে গেছে। আলু কী ইউক্রেন থেকে আসে না রাশিয়া থেকে আসে। ৯০ টাকার পেট্রল যদি ১১৫ টাকা হয় তাহলে দাম বাড়ল ২০ থেকে ২৫ শতাংশ। আর আলু ১৮ টাকা থেকে ৩৬ টাকা হয়েছে। অর্থাৎ ১০০ শতাংশ দাম বেড়েছে। পেট্রল কেউ খায়না কিন্তু আলু সবাই খায়। এখন তৃনমূল নেতাদের ধরে পিছনে একটু পেট্রল দিয়ে দিন। দেখুন তারা কেমন দৌড় মারবে। আমরা ছোট বেলায় বদমাইশি করে কুকুরের পিছনে পেট্রল দিয়ে দিতাম। আবার সময় এসেছে টি এম সি নেতাদের পেছনে পেট্রোল দেওয়া হবে। সেই পেট্রোল নিয়ে দৌড় মারবে। আর লোক জিজ্ঞেস করবে কেমন মজা।

LEAVE A REPLY