মুখ্যমন্ত্রীর সভায় এসে নিখোঁজ হওয়া ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার হল গাংপুর স্টেশনে

0
64

নিজস্ব প্রতিনিধি,বর্ধমানঃ সোমবার মুখ্যমন্ত্রীর সভায় এসে নিখোঁজ হয়েছিলেন মেমারীর দেহুড়া গ্রামের তৃণমূল কর্মী রবীন্দ্রনাথ সাঁই। সোমবার বর্ধমান শহরের  গোদার  হেলথ সিটি মাঠে মুখ্যমন্ত্রী প্রশাসনিক সভা ছিল।  সেই সভায় কৃষকদের পাশাপাশি  জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য শুনতে। তাদের মধ্যে একজন মেমারীর দেহুড়া গ্রামের রবীন্দ্রনাথ সাঁই (৭২)। সোমবার সকাল এগারটা নাগাদ দেহুড়া গ্রাম থেকে অন্যন্য তৃণমূল কর্মীদের সাথে একসঙ্গেই বাসে চড়ে সভাস্থলের উদ্দেশ্যে রওনাদেন রবীন্দ্রনাথ বাবু। বর্ধমানের বাবুরবাগে সকলে বাস থেকে নেমে হেঁটে সভাস্থলের দিকে যান। তখনই দলছুট হয়ে যান রবীন্দ্রনাথ বাবু। সভামঞ্চে পৌঁছে অন্যান্যরা তাকে দেখতে পায়নি। সভার শেষেও বাসে উঠে রবীন্দ্রনাথ বাবুকে দেখতে পায়নি এলাকার বাসিন্দারা।  বেশ খানিকক্ষণ তার জন্য অপেক্ষা করে তাকে না পেয়ে গ্রামে ফিরে যান এলাকার লোকজন। গ্রামে গিয়ে বিষয়টি জানালে পরিবারের লোকেরা বর্ধমান ও মেমারীতে খোঁজ করেন রবীন্দ্রনাথবাবুর। বিষয়টি নিয়ে জানানো হয় মেমারীর বিধায়ককেও। শুরু হয় খোঁজ খবর নেওয়া। জানানো হয় বর্ধমান থানায়। জি আর পি সূত্রে জানা গেছে, সোমবার রাত আটটা নাগাদ আপ অমৃতসর মেলের ধাক্কায় মৃত্যু হয় রবীন্দ্রনাথ সাঁই এর। পরিবারের সদস্যদের অনুমান, মুখ্যমন্ত্রীর অনুষ্ঠানে আসার সময় গ্রামের অন্যান্য তৃণমূল কর্মীদের থেকে দলছুট হয়ে যাবার পর কোনো ভাবে গাংপুর স্টেশনে পৌঁছায়। তার শারীরিক বিভিন্ন সমস্যা ছিল সেকারণেই হয়তো ওভার ব্রীজ দিয়ে না গিয়ে রেললাইন দিয়ে পারাপার করতে গিয়ে এই দুর্ঘটনা। বুধবার পরিবারের লোকেরা মৃতদেহ শনাক্ত করে। পুলিশ মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য বর্ধমান পুলিশ মর্গে পাঠিয়েছে। এই ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

LEAVE A REPLY