বর্ধমানে বিষ মদে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪,শহরজুড়ে তল্লাশি,হোটেল ধাবায় বন্ধ মদ বিক্রি

0
114

নিজস্ব প্রতিনিধি,বর্ধমানঃ ফের বিষমদের বলি। গতকাল রাতে বিষ মদ খেয়ে বর্ধমান শহরের বাহির সর্বমঙ্গলা পাড়ার পাঁচ জন গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ার ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। এদের মধ্যে শেখ সুবরতি(৩৪) ও শেখ আমিন (৪৩) নামে দুই ব্যক্তিকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে  নিয়ে যাওয়া  হলে শেখ সুবরতিকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। চিকিৎসা চলাকালীন শেখ আমিনের মৃত্যু হয়। অন্যদিকে মদ খেয়ে অসুস্থ আরো তিনজনকে বাবুরবাগ এলাকার একটি বেসরকারি  নার্সিংহোমে ভর্তি করা হয়। কিন্তু আজ তাদের মধ্যে দুজনের মৃত্যু হলে বিষ মদে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৪। জানা গেছে, বিষাক্ত মদের প্রকোপে শহরে আরও কয়েকজন গুরুতর অসুস্থ। তাদের বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও একাধিক নার্সিংহোমে চিকিৎসা চলছে।  সকলেই মদ খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাই বিষ মদের কারণেই মৃত্যু বলে প্রাথমিক তদন্তে অনুমান পুলিশের। প্রশ্ন উঠেছে, এরা কোথা থেকে এবং কি মদ কিনে খেয়েছিল। যদিও এই ঘটনায় এখনও কোনো অভিযোগ দায়ের হয়নি মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে। জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কল্যাণ সিংহ রায় সহ পুলিশের আধিকারিকরা  সর্বমঙ্গলা পাড়ায় গিয়ে তদন্ত শুরু করেছে। ধাবা এবং হোটেলে মদ বিক্রির বিরুদ্ধে অভিযান আরো জোরদার করা হয়েছে। পূর্ব বর্ধমানের পুলিশ সুপার কামনাশীষ সেন জানান, মৃত্যুর সঠিক কারণ ময়না তদন্তের ফলেই স্পষ্ট হবে। তিনি আরো জানান,গতকাল দুজন মারা যান বর্ধমান হাসপাতালে। তারা নেশাগ্রস্ত  আচ্ছন্ন অবস্থায় ছিল। আজ আবার দুই ভাই মারা গেছেন। যদিও তাদের পরিবার মদের বিষয়টি স্বীকার করছে না। তিনি জানান,শহরে সব দোকান বন্ধ করা হয়েছে। হোটেল ও ধাবায় মদ বিক্রির বিরুদ্ধে অভিযান আরো জোরদার করা হয়েছে। আবগারি দপ্তরকে ওয়াকিবহাল করা হয়েছে। তিনি আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ কথা বলেছেন এই অঞ্চলে থাকা ১৩৪টি বেসরকারি হাসপাতালে ও চিকিৎসা কেন্দ্রে খবর দেওয়া হয়েছে। এই ধরণের আর কোনো উপসর্গ নিয়ে কেউ ভর্তি হয়েছেন কিনা।

LEAVE A REPLY