আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনে টেট,এসএসসি ইস্যু হবে,যুবক-যুবতীরা আলো দেখাবে- লকেট 

0
56

জয় লাহা, দুর্গাপুর,২৯ অক্টোবরঃ ‘খেলা হবের নামে ভোট নিয়ে প্রহসন করেছে। দুর্নীতি ধরা পড়েছে। টেট, এসএসসির দুর্নীতির মুখোশ খুলে গেছে। কোটি কোটি টাকা ধরা পড়েছে। এটাই খেলা হবের উত্তর। যেভাবে খেলবে, আরও বেশী উত্তর পাবে। পরীক্ষায় পাশ করেও চাকরি পায়নি। বাংলার প্রতি ঘরে ঘরে বেকার যুবক যুবতীরা বসে। কেউ আত্মঘাতী হয়েছে, কেউ অন্য রাজ্যে কাজের তাগিদে গেছে। ঘরে ঘরে এই সমস্যাগুলো একসাথে নিয়ে আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনের ইস্যু হবে।’ শনিবার দুর্গাপুরের পলাশডিহা মাঠে বিধায়ক কাপ ফুটবলের উদ্বোধনে এসে রাজ্যের শাসকদলকে এভাবেই আক্রমন করলেন বিজেপি সাংসদ লকেট চ্যাটার্জী। পায়রা উড়িয়ে খেলার উদ্বোধন করেন ও খেলোয়াড়দের সঙ্গে মাঠে আলাপচারিতা করেন তিনি। তারপর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রীর কলমধারী মাওবাদীর মন্তব্যকে সমর্থন জানিয়ে বলেন,” নিশ্চয়। এরাজ্যের বুদ্ধিজীবিরা কখনই দেশের ভালো চায় না। তারা সৎ চরিত্র, সৎ মানুষের কাছে যায় না। সৎ কর্মে মাথা নত করে না।” আগাগোড়া রাজ্যের শাসকদলের দুর্নীতি ও অস্ত্র উদ্ধারকে তুলে ধরে কড়া আক্রমন করে লকেট চ্যাটার্জী বলেন,” রাজ্যে যেভাবে অস্ত্র উদ্ধার হচ্ছে, তাতে শাসকদল পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছে। অতীতের ঘটনা সাক্ষী, বোমা, অস্ত্র ভান্ডার, বারুদের স্তুপ করে পঞ্চায়েত নির্বাচন করেছে। রাজ্যে পঞ্চায়েত ভোট মানেই রক্তপাত, খুন, সন্ত্রাস।” তিনি আরও বলেন,” জনগনের ভোটে সরকার গড়লেও, এখন মানুষের ওপর তাদের বিশ্বাস নেই। তাই তাদের একমাত্র ভরসা বোমা, অস্ত্র।” বীরভুমের দাপুটে তৃণমূল নেতা অনুব্রত মন্ডল জেলে। বীরভুম সহ রাজ্যে বিজেপির পঞ্চায়েত নির্বাচনে ফলাফল প্রসঙ্গে তিনি বলেন,” মস্তান, গুন্ডারা যারা বড় বড় কথা বলেছে, তারও ভয় পেয়েছে। জেলে যাওয়ার ভয়ে পালিয়ে বেড়িয়েছে। কান্নাকাটি করেছে। হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। কালিঘাটের দরবার হয়েছে। তবুও শেষ রক্ষা হয়নি। জেলে যেতে হয়েছে।” তিনি বলেন,” বিধায়ক কাপ, খেলাধূলার মাধ্যমে যুবক-যুবতীদের ঐক্যবব্ধ করতে পারবে। অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াই করবে যুবক-যুবতীরা। আগামীদিনে আলোর পথ দেখাবে।” তিনি আরও বলেন,” দুর্নীতি আর অন্যায়ের বিরুদ্ধে বিজেপি চোখে চোখ রেখে লড়াই করছে। এই লড়াই গণতন্ত্রকে জেতাবে। আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনে বীরভুম সহ গোটা রাজ্যে বিজেপি ভালো ফল করবে।” 

LEAVE A REPLY