নোটিশ ঘিরে বিভ্রান্তি,শ্রমিক বিক্ষোভের জেরে বন্ধ হলো কারখানা

0
271

নিজস্ব প্রতিনিধি,লাউদোহাঃ শ্রমিক বিক্ষোভ ও অশান্তির কারণে সোমবার বন্ধ হয়ে গেল দুর্গাপুর-ফরিদপুর ব্লকের ঝাঁঝরা এলাকার সুপার আইরন নামে একটি কারখানা। এদিন সকালে কারখানার গেটে বন্ধের নোটিশ টাঙ্গিয়ে দেয় কর্তৃপক্ষ। নোটিশের কথা ছড়িয়ে পড়তে কারখানা গেটে ভিড় জমান শ্রমিকেরা।  বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তারা। যার জেরে তৈরি হয় উত্তেজনা। শ্রমিকদের অভিযোগ, গত তিন মাস ধরে কারখানা কর্তৃপক্ষ তাদের বেতন দিচ্ছে না। বকেয়া বেতনের দাবিতে শনিবার রাতে তারা কারখানার গেটে বিক্ষোভ দেখায়। বেতন আটকে রাখার অভিযোগ মানেনি কারখানা কর্তৃপক্ষ। সংস্কার আধিকারিক আর কে শুক্লা জানান, সংস্থায় ৬২ জন ঠিকা শ্রমিক রয়েছেন। যে সংস্থার অধীনে এরা কাজ করেন সেই সংস্থাকে বেতন মিটিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। দুপক্ষের বিরোধ মীমাংসার জন্য রবিবার লাউদোহা থানার পুলিশের উপস্থিতিতে একটি বৈঠক হয়। সেই বৈঠকে কারখানা কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন শ্রমিক, ঠিকাদার সংস্থা ও শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধিরা। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় আগামী ১০ দিনের মধ্যে শ্রমিকদের বেতন সংস্থা মিটিয়ে দেবে। বিনিময়ে কারখানায় বিক্ষোভ দেখানো থেকে বিরত থাকবে শ্রমিকেরা। তখনকার মত বিষয়টি মিটে গেলেও আজ সকালে কারখানার গেটে টাঙ্গানো একটি নোটিশ চোখে পড়ে শ্রমিকদের। সংস্থার তরফ থেকে সেই নোটিশ টাঙ্গানো হয়। জানানো হয় বিশৃংখলার কারণে অনির্দিষ্টকালের জন্য কারখানা বন্ধ করা হলো। নোটিশ দেখে উত্তেজনা ছড়ায় শ্রমিকদের মধ্যে। গেটের বাইরে শুরু হয় বিক্ষোভ। বকেয়া বেতন ও নোটিশ প্রত্যাহারের দাবি জানান শ্রমিকরা। সংস্থার পক্ষে আর কে শুক্লা বলেন, কারখানায় উৎপাদন কাজ বন্ধ রয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পুনরায় কারখানা খুলবে। তৃণমূলের ব্লক সভাপতি সুজিত মুখোপাধ্যায় বলেন, মীমাংসা হয়ে যাওয়ার পর কর্তৃপক্ষের তরফে কারখানা বন্ধ রাখার নোটিশ দেওয়া ঠিক কাজ হয়নি। ঠিকা শ্রমিকদের বকেয়া বেতন দ্রুত মিটিয়ে দেওয়ার দাবি জানান তিনি।

LEAVE A REPLY