মৃত ছাগলের শরীরে বিষ দিয়ে বেশ কয়েকটি কুকুরকে মেরে ফেলার অভিযোগে গ্রেফতার বাবা ও ছেলে

0
54

নিজস্ব প্রতিনিধি,বাঁকুড়া: মৃত ছাগলের শরীরে বিষ ঢুকিয়ে সেটিকে টোপ হিসাবে ব্যবহার করে বেশ কয়েকটি কুকুর মেরে ফেলার ঘটনায় বাঁকুড়ার কোতুলপুর থানার বনমুখ গ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হল বাবা ও ছেলেকে। ধৃত দুজনের নাম অশোক পাল ও স্বপন পাল। ধৃতদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দন্ডবিধির প্রিভেনশান অফ ক্রুয়েলটি আইনে মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। ধৃতদের আজ বিষ্ণুপুর মহকুমা আদালতে পেশ করা হবে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে দিন কয়েক আগে বনমুখ গ্রামের অশোক পাল নামের স্থানীয় এক বাসিন্দার গৃহপালিত একটি ছাগল মাঠে চরতে গিয়ে কোনো হিংস্র প্রানীর হানায় আহত হয়। দিন কয়েক পর সেই ছাগলটি গতকাল মারা যায়। এরপরই অশোক পাল ও তার বাবা স্বপন পালের যাবতীয় রাগ গিয়ে পড়ে গ্রামের পথ কুকুরদের উপর। কুকুরের আক্রমণেই ছাগলটির মৃত্যু হয়েছে এই সন্দেহে কুকুরদের সবক শেখাতে উদ্যোগী হয় ছেলে ও বাবা। অভিযোগ এরপরই বাবা ও ছেলে দুজনে মিলে ওই মৃত ছাগলের শরীরে বিষ প্রয়োগ করে সেই ছাগলটিকে গ্রাম লাগোয়া মাঠের ধারে ফেলে রাখে। গ্রামের কুকুরের দল ওই ছাগলটির মাংস ছিঁড়ে খেলে বিষক্রিয়ায় একের পর এক কুকুর অসুস্থ হতে শুরু করে। স্থানীয় সূত্রে খবর বিষক্রিয়ায় চার – পাঁচটি কুকুর মারাও যায়। এই নৃশংসতার কথা সামাজিক মাধ্যমে তুলে ধরে ধিক্কার জানান স্থানীয় এক গ্রামবাসী। সেই সামাজিক মাধ্যমে ঘটনার খবর পেতেই দ্রুত গ্রামে ছুটে যায় কোতুলপুর থানার পুলিশ। অভিযুক্ত বাবা ও ছেলেকে গ্রেফতার করার পাশাপাশি বিষক্রিয়ায় অসুস্থ হয়ে পড়া এলাকার বেশ কিছু কুকুরকে চিহ্নিত করা হয়। দ্রুত সেই কুকুরগুলির চিকিৎসার ব্যবস্থাও করা হয়। কিন্তু স্থানীয় সূত্রে খবর তাতেও ঠেকানো যায়নি কুকুরের মৃত্যুমিছিল। এলাকার মানুষ গোটা ঘটনার তদন্তের পাশাপাশি এই নৃশংসতার অপরাধে যুক্তদের কঠোর শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।ধৃত দুই জনের চার দিনের পুলিশী হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে বিষ্ণুপুর মহকুমা আদালত।

LEAVE A REPLY