দুর্গাপুরে অ্যালয় স্টিল প্লান্টের পর এবার বিলগ্নিকরণের তালিকায় লাভজনক ফেরোস্ক্রাপ নিগম লিমিটেড

0
226

নিজস্ব প্রতিনিধি, দুর্গাপুর : দুর্গাপুরে অ্যালয় স্টিল প্লান্টের পর এবার বিলগ্নিকরণের তালিকায় সংযুক্ত হল লাভজনক ফেরোস্ক্রাপ নিগম লিমিটেড-এর নাম। ভারত সরকারের অধীনস্থ এই সংস্থাটি বিলগ্নিকরণ করতে চাইছে কেন্দ্র। বিলগ্নিকরণের খবর প্রকাশ্যে আসতেই দেশ জুড়ে ফেরোস্ক্রাপ সংস্থার আধিকারিক – কর্মীরা ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন। দুর্গাপুরেও সংস্থার কর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে বিক্ষোভে সামিল হয়েছেন। কর্মীদের আশঙ্কা বিলগ্নিকরণ হলে অনেকেই কাজ হারাবেন। শুধু কর্মীরা নন, কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরোধীতা করে বৃহত্তর আন্দোলন শুরু করতে চলেছে বিএমএস। একই পথে হাঁটার কথা বলেছেন আইএনটিটিইউসি নেতৃত্ব। দেশে যে সমস্ত স্টিল প্লান্ট আছে সেখানে স্ক্রাপ ও স্লাগ সরবরাহ করে ফেরোস্ক্রাপ। দুর্গাপুর স্টিল প্লান্টের (ডিএসপি) ভিতরে সংস্থার একটি ইউনিট আছে। সেখানে স্থায়ী ও অস্থায়ী মিলিয়ে ১১৬ জন কর্মী কাজ করেন। বিলগ্নিকরণের খবর জানাজানি হতেই কাজ বন্ধ করে বিক্ষোভে সামিল হন কর্মীরা। তাদের সঙ্গে ছিলেন আধিকারিকরাও। সংস্থার দুর্গাপুর ইউনিটের হেড অ্যাসিস্টটেন্ট রঞ্জিত শর্মা বলেন, ‘১৯৭৯ সাল থেকে ফেরোস্ক্রাপ সংস্থা দেশ জুড়ে সমস্ত স্টিল প্লান্টে কাজ করছে। শুরুর দিন থেকে আজ অবধি কখনও লোকসান হয় নি সংস্থার। এমন একটা সংস্থাকে বিলগ্নিকরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। বিলগ্নিকরণ করে কাদের ফায়দা করতে দিতে চাইছে কেন্দ্রীয় সরকার। আমরা বিলগ্নিকরণের তীব্র বিরোধীতা করছি। দেশ জুড়ে ফেরোস্ক্রাপের সমস্ত ইউনিটে বিলগ্নিকরণের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সামিল হয়েছেন কর্মীরা।’ বার্নপুর, বোকারো, ভিলাই, দুর্গাপুর সহ দেশের নানা প্রান্তে স্টিল প্লান্টগুলিতে ফোরোস্ক্রাপের ইউনিট আছে। ফেরোস্ক্রাপের বিলগ্নিকরণের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছেন শ্রমিক সংগঠন বিএমএসের প্রতিনিধিরা। সংগঠনের সর্ব ভারতীয় স্টিল সেক্টারের সভাপতি অরূপ রায় বলেন, ‘সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার ফেরোস্ক্রাপ বিলগ্নিকরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমরা এই সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ করছি। আগামী সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর মাসে দিল্লীতে গিয়ে সর্বভারতীয় স্তরের প্রতিনিধিদের নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের বিলগ্নিকরণের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তুলব।’ একই পথে হাঁটবেন বলে জানিয়েছেন, শাসক দলের শ্রমিক নেতা তথা পুরসভার নিকাশি দপ্তরের মেয়র পারিষদ প্রভাত চট্টপাধ্যায়। তিনি  বলেন, ‘এর আগে কেন্দ্রীয় সরকার অ্যালয় স্টিল প্লান্ট বিলগ্নিকরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। প্রতিবাদে আমরা টানা ৮৯ দিন অ্যালয় স্টিলের গেটের বাইরে অবস্থান বিক্ষোভ করেছিলাম। ফেরোস্ক্রাপ যদি বিলগ্নিকরণ করা হয় তাহলে এখানেও আমরা বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তুলব।’   

LEAVE A REPLY