সম্প্রীতির নজির লাউদোহায়,মুসলিম সম্প্রদায়ের সহযোগিতায় প্রথম দূর্গা পুজোর আয়োজন গ্রামে

0
163

সংবাদদাতা,অন্ডালঃ  ধর্ম নিজের নিজের উৎসব সবার। ধর্মীয় বিভেদকে সরিয়ে রেখে দুর্গা পুজোর আয়োজন করে সম্প্রীতির নজির গড়লো লাউদোহা ব্লকের তিলাবনি গ্রাম। উভয় সম্প্রদায়ের উদ্যোগে এ বছর প্রথম আয়োজন হয়েছে দুর্গাপুজোর। লাউদোহা ব্লকের তিলাবনি গ্রাম। এখানে পাশাপাশি বসবাস করে হিন্দু ও মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষজন। তবে বাসিন্দাদের সিংহভাগই মুসলিম সম্প্রদায়ের। দুই সম্প্রদায়ের মানুষ বসবাস করলেও এই গ্রামে কখনো ধর্ম নিয়ে বিভেদ হয়নি। বরং এই গ্রামে রয়েছে সম্প্রীতির নজির। হিন্দু মুসলিম উভয় সম্প্রদায়ের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এই বছর গ্রামে প্রথম আয়োজন হয়েছে দুর্গাপুজোর। পুজোর আয়োজনে সক্রিয়ভাবে রয়েছেন উভয় সম্প্রদায়ের মানুষজন। পুজোর পাশাপাশি রয়েছে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজনও। শেখ সাদেক,শেখ ইদ্রিসরা জানান,গ্রামে প্রতিবছর সাড়ম্বরে আয়োজিত হয় পীর বাবার উৎসব। সেই উৎসবে শামিল থাকেন হিন্দু সম্প্রদায়ের বাসিন্দারাও। এতদিন গ্রামে এটিই ছিল বড় উৎসব। তাই আমাদের ইচ্ছে ছিল হিন্দু সম্প্রদায়ের দুর্গাপুজোরও আয়োজন হোক গ্রামে। কারণ ধর্ম নিজের নিজের, কিন্তু উৎসব সবার সেই কারণেই দুর্গাপুজোর আয়োজন বলে জানান তারা। আয়োজকদের পক্ষে বরুণ নায়েক বলেন, গ্রামে দুর্গাপুজোর আয়োজন না থাকায় পূজো দেখতে যেতে হতো আশপাশের গ্রামে। এবার থেকে গ্রামেই পূজোর উৎসবে সবাই সামিল হতে পারবে এটা বড় আনন্দের বিষয়।‌ মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষজন সর্বত্রভাবে পুজো আয়োজনে সহযোগিতা করেছে বলেই এটা সম্ভব হল, জানান বরুণবাবু। রবিবার সপ্তমীর সন্ধ্যায় তিলাবনি গ্রামে পুজো মন্ডপে গিয়ে দেখা যায় মন্ডপে ভিড় করেছে হিন্দু মুসলিম উভয় সম্প্রদায়ের মানুষজন। সম্প্রীতির এই নজির দেখতে সংশ্লিষ্ট এলাকার মানুষজনও তিলাবনি গ্রামে পুজো দেখতে আসছে বলে জানান বাসিন্দারা।

LEAVE A REPLY