এক গৃহবধু হত্যার অভিযোগ উঠলো শুশুরবাড়ির বিরুদ্ধে

0
67

নিজস্ব প্রতিনিধি,বাঁকুড়াঃ গৃহবধুর মৃতদেহ উদ্বার ঘিরে উত্তেজনা ছড়ালো।ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়া জেলার ওন্দা থানার  রতনপুরে।গত চার বছর আগে রতনপুরের সি আর পি এফ কর্মী সোমনাথ পরামানিকের সাথে বিবাহ হয়েছিল হিড়বাঁধ এলাকার বছর পঁচিশের সোনালি পরামানিকের। তদের ১১ মাসের একটি কন্যাসন্তান রয়েছে। আজ  গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় মৃতদেহ দেখেন পরিবারের লোকজন এমনটাই অভিযোগ। গৃহবধুর বাপের বাড়ির অভিযোগ,স্বামী সোমনাথ পরামানিক কর্মসূত্রে ঝাড়খন্ডের রাঁচিতে কর্মরত। স্বামীর অবর্তমানেও সোনালি পরামানিকের ওপর চলত অমানবিক অত্যাচার এমনটাই অভিযোগ মেয়ের পরিবারের।  বিয়ের এক মাস পর থেকে মেয়ের ওপর অমানবিক অত্যাচার শুরু করে শশুরবাড়ির লোকজন।  কন্যা সন্তান জন্ম দেবার পর থেকে অত্যাচারের পরিমাণ অনেকটাই বেড়ে যায়। বাপের বাড়ির অভিযোগ আজ ভোরে সোনালির শশুরবাড়ির থেকে খবর দেওয়া হয় যে তাদের মেয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তড়িঘড়ি খবর পেয়ে ছুটে ছুটে আসেন মেয়ের পরিবারের লোকজন।তারা দেহ দেখে অভিযোগ করেন এটা নিছকই আত্মহত্যা নয়। মেয়েকে পরিকল্পনা করে খুন করেছে শ্বশুরবাড়ির লোকজন। ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয় পুনিশোল ফাঁড়ির পুলিশ  ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য পাঠায়।  এটা নিছকই আত্মহত্যা নাকি খুন বিষয়টি খতিয়ে দেখছে ওন্দা থানার অধীনস্থ পুনিশোল ফাঁড়ির পুলিশ।

LEAVE A REPLY