সরকারী হাসপাতালে চাকরী পাওয়ায় স্ত্রীর হাত কেটে দিল স্বামী

0
167

বিশেষ প্রতিনিধি,দুর্গাপুরঃ সরকারি হাসপাতালে নার্সের চাকরির প্যানেলে নাম নথিভুক্ত হয়েছিল কেতুগ্রামের বাসিন্দা রেনু খাতুনের। আর কয়েকদিন পরে চাকরিতে যোগ দেওয়ার কথা। কিন্ত রেনুর স্বামী সিরাজুল শেখকে তাঁর বন্ধুরা বোঝায় স্ত্রী সরকারি চাকরি পেয়ে গেলে তাঁকে ছেড়ে চলে যাবে। স্ত্রীকে সরকারি চাকরি করতে নিষেধ করে সিরাজুল। কিন্তু নিষেধের তোয়াক্কা করে নি রেনু। তাই তাঁকে জব্দ করার জন্য স্ত্রীকে খুনের চক্রান্ত করে সিরাজুল। গত শনিবার রাতে কেতুগ্রামের বাড়িতে রেনুর ওপর চড়াও হয় সিরাজুল ও তাঁর দুই বন্ধু। মুখে বালিশ চাপা দেওয়ার পর ধারালো অস্ত্র দিয়ে রেনু হাতের কব্জি কেটে ফেলে৷ রেনুর চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা আসেন। রেনুর বাপের বাড়িতে খবর দেওয়া হয়। রাতেই রেনুকে নিয়ে যাওয়া হয় কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে। সেখান থেকে তাঁকে স্থানান্তর করা হয় বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। সেখান থেকে রবিবার সকালে রেনুকে নিয়ে আসা হয় দুর্গাপুরে একটি বেসরকারি হাসপাতালে। অস্ত্রোপচারের পর রেনু সুস্থ আছে। কিন্তু অত্যন্ত দেরী হয়ে যাওয়ায় কাটা হাত আর জোড়া লাগাতে পারেন নি চিকিৎসকরা। রেনুর পরিবারের তরফে কেতুগ্রাম থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। ঘটনার পর থেকে রেনুর স্বামী সহ পরিবারের লোকেরা পলাতক। সোমবার দুপুরে কেতুগ্রাম থানার পুলিশ দুর্গাপুরে এসে রেনুকে জিজ্ঞাসাবাদ করে।

LEAVE A REPLY