বাঁদরের কামড়ে মৃত্যু হল এক প্রৌড়ের, বাঁদর ধরতে ঘুম ছুটেছে বনদপ্তরের

0
216

নিজস্ব প্রতিনিধি,বাঁকুড়াঃ বাঁকুড়ার গঙ্গাজলঘাটি থানার অন্তর্গত লালপুর গ্রামে বাঁদরের কামড়ে আকস্মিক  মৃত্যু হলো এক প্রৌড়ের।বছর বিরাশির কানাইলাল কুন্ডুর মৃত্যু হলো বাঁদরের কামড়ে। বাড়ি গঙ্গাজলঘাটি থানার লালপুর গ্রামে।গঙ্গাজলঘাটি থানার ও বনদপ্তর খবর দিলেও এখনো বাঁদর উদ্ধার করতে কালঘাম ছুটেছে বনদপ্তর এর।স্থানীয় সূত্রে খবর, আজ সকালে পাউরুটি কেনার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বেরিয়ে স্থানীয় বাজারের একটি দোকানে আসেন বৃদ্ধ কানাইলাল কুন্ডু।সেখানেই ঝগড়ারত দুটি বাঁদরের মধ্যে একটি বাঁদর আচমকাই কামড় বসায় ঐ বৃদ্ধের পায়ে। স্থানীয়রা উদ্ধার কার্যে প্রাথমিকভাবে হাত লাগায় ।বৃদ্ধের পায়ে প্রচন্ড রক্তক্ষরণ শুরু হয় অচৈতন্য হয়ে পড়েন তিনি। তড়িঘড়ি স্থানীয়রা গঙ্গাজলঘাটি থানা এবং বনদপ্তর দেন। খবর পেয়ে ছুটে আসে পুলিশ ও বনদপ্তরের লোকজন। গুরুতর আহত অবস্থায় ওই বৃদ্ধকে উদ্ধার করে অমরকানন গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে  চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। গঙ্গাজলঘাটি থানায় পুলিশ মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠায়।বাঁদরের কামড়ে বৃদ্ধের আকস্মিক মৃত্যুতে গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।অপ্রীতিকর ঘটনা এড়তে বাঁদরটিকে ফাঁদ পেতে ধরার জন্য তোড়জোড় শুরু করেছে বনদপ্তর। ঘাতক বাঁদরটিকে অজ্ঞান করতে ট্রাংকুলাইজার টিম আনা হয়েছে গ্রামে। গানটিকে বাগে এনে খাঁচাবন্দী করার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বনদপ্তর। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এখনো কাবু করা যায়নি ঘাতক বাঁদরটিকে। স্থানীয় মানুষজনের দাবি বানরটি গত ৫ দিন আগে হঠাৎ করেই এই এলাকায় এসে পড়েছে।স্থানীয় যেসব বাঁদর গুলি রয়েছে তাদের কেউ আক্রমণ করছে ঘাতক বাদরটি।অবিলম্বে ঘাতক বানরটিকে খাঁচাবন্দি করুক বনদপ্তর এমনটাই দাবি স্থানীয়দের।

LEAVE A REPLY