জনসংযোগ বাড়াতে বেসরকারি বাসে যাত্রা কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর,কটাক্ষ তৃণমূলের

0
68

নিজস্ব প্রতিনিধি,বাঁকুড়াঃ সামনেই পঞ্চায়েত নির্বাচন তাকেই পাখির চোখ করে কেন্দ্রীয় শিক্ষা পতিমন্ত্রী সুভাষ সরকার বেসরকারী বাসে চড়ে বাঁকুড়া থেকে যাত্রা করলেন ঝিলিমিলির উদ্দেশ্যে। লক্ষ্য জঙ্গলমহলের বিজেপির জনসংযোগ বাড়ানো। বাসে জনসংযোগের পাশাপাশি রাস্তার প্রতিটি মোড়ে  দলীয় কর্মী ও সাধারন মানুষের কাছে লিখিত অভিযোগ গ্রহণ করবেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে আগামী পঞ্চায়েতে রনকৌশল ঠিক করবে বিজেপি দাবি করেন বর্ষিয়ান এই বিজেপি সাংসদ। এছাড়াও রাজ্যের বিভিন্ন বিষয়ে কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমমন্ত্রী সুভাষ সরকার সাংবাদিকদের কাছে তাঁর প্রতিক্রিয়া দেন। ১০০ দিনের কাজে অনিয়মের অভিযোগ রাজ্যের রিপোর্টে সন্তুষ্ট নয় কেন্দ্র আরো বিপাকে ১০০ দিনের প্রকল্প – এই প্রশ্নের জবাবে তাঁর দাবি, ১০০ দিনের কাজের দুর্নীতির দায় রাজ্য সরকারের। শাসকদলের সমস্ত পঞ্চায়েতে দুর্নীতি হয়েছে,এর জন্যই মানুষের কষ্ট। চাকরি চুরির টাকা কি লটারিতে গেছে? উত্তরে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীর জবাব,সেটা তো দেখাই যাচ্ছে সিবিআই ইনকয়ারিতে সে তো বলছে যার কাছে লটারি যার একাউন্টে টাকা ঢুকেছে তার টিকিট বিক্রি হয়নি। রাজ্য সরকার মেনে নিয়েছে ভাড়ে মা ভবানী অবস্থা – এপ্রসঙ্গে মন্ত্রীর দাবী, সেটাইতো স্বাভাবিক, সেটা তো অনেক দিনই মানছে। সেই জন্যই ধার ক্রমশ বাড়ছে। ডি এ সম্পর্কে রাজ্য সরকারের কোর্টে হলফনামায় জারী করে দাবি করেছে যা দেওয়া হয়েছে, এর থেকে বেশি দেওয়া সম্ভব না। এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে সাংসদ এর দাবি যা অবস্থা তাতে সরকার আর কতদিন চলবে সেটাই তো বুঝতে পারা যাচ্ছে না। সরকারের শীঘ্রই পতন হবে। তৃণমূলের প্রস্তুতি বৈঠকের অভিষেকের ডাক সবাইকে নিয়ে চলতে হবে। কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীর কটাক্ষ- সে তো দায়ে পড়ে সবাইকে নিয়ে চলছে। তাহলে পার্থর জন্য এক রকম আর অনুব্রতর জন্য আরেক রকম কেন? বিমল গুরুং এর দাবি পাহাড়ের মানুষের আশা প্রত্যাশা যারা মেটাবে তাদেরকেই ভোটে জিতিয়ে পাঠাবো। এসম্পর্কে সাংসদের দাবি সেটাই স্বাভাবিক। কুনাল ঘোষকে চোর স্লোগান দেওয়া প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীর জবাব, কুনাল ঘোষ তো চোরই, সে তো চোর। যেভাবে মমতা ব্যানার্জির সরকার তার ওপর আক্রমণ করেছিল, তা সত্বেও আবার সেখানে গিয়ে ঢুকেছে। অবশ্য মন্ত্রীর এই বাস সফরকে ভালো চোখে দেখেনি তৃণমূল। তাদের দাবি, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তার মন্ত্রণালয়ের থেকে তাকে দেওয়া হয়েছে ঝা চকচকে গাড়ি। তাহলে তাকে কেনই বা বাসে চড়তে হবে। আর কেনই বা পঞ্চায়েত ভোটকে সামনে রেখে করতে হবে জনসংযোগ। সবই নাটক,আগামীদিনে পঞ্চায়েত নির্বাচনে এই বাস যাত্রার খেসারত দিতে হবে বিজেপিকে।

LEAVE A REPLY