মঞ্চে সুকান্ত,মিঠুন চক্রবর্তীদের সামনে পেয়ে ক্ষোভ উগরে দিলেন দলের কর্মীরা

0
81

সার্থক কুমার দে, লাউদোহাঃ বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার, মিঠুন চক্রবর্তীকে সামনে পেয়ে স্থানীয় নেতাদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন দলের কর্মীরা। শনিবার সন্ধ্যায় লাউদোহার ঝাঁঝরা কলোনিতে আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচন  নিয়ে দলের কর্মী সম্মেলনে ঘটনাটি ঘটে। দুর্গাপুর-ফরিদপুর ব্লকের ঝাঁঝরা কলোনিতে শনিবার বিকেলে বিজেপি পার্টির পক্ষ থেকে আয়োজিত হয় পঞ্চায়েত কর্মী সম্মেলন। সভাতে উপস্থিত ছিলেন দলের রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার, বীরভূমের বিজেপি বিধায়ক অনুপ সাহা, দুর্গাপুরের বিধায়ক লক্ষণ ঘড়ুই, দলের জেলা সভাপতি দিলীপ দে, মিঠুন চক্রবর্তী সহ অন্যরা। প্রকাশ্য এই সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিম বর্ধমান জেলার নানা প্রান্ত থেকে আসা কয়েক হাজার বিজেপি কর্মী সমর্থক। নির্ধারিত সময়ের প্রায় এক ঘন্টা পর সভাতে উপস্থিত হন দলের রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার ও মিঠুন চক্রবর্তী। বক্তৃতায় সুকান্তবাবু রাজ্য সরকার ও তৃণমূলের বিরুদ্ধে সরব হন। তিনি বলেন, “তৃণমূল চারদিকে সন্ত্রাস করছে। ডিসেম্বর মাস আসতে দিন তখন কে কার হাত কাটে তখন দেখা যাবে। কয়লা,বালি চোরেরা সব জেলে যাবে। ছাড় পাবেনা। রাজ্যের মানুষের টাকা আত্মসাৎ করে রাজ্য সরকার ৫০০ টাকা করে দিচ্ছে। বিজেপি সরকার এলে কথা দিচ্ছি সবাই দু হাজার টাকা করে পাবে”। শেষে বক্তৃতা দিতে ওঠেন মিঠুন চক্রবর্তী। তিনি বলেন, “আজ আমি কিছু বলবো না। সবার কথা শুনবো বলে এখানে এসেছি”। এরপরেই তিনি মাইক তুলে দিতে বলেন দলের কর্মীদের হাতে। মাইক হাতে নিয়ে বারাবনি থেকে আসা এক মহিলা কর্মী অভিযোগ করেন বিধানসভা ভোটের পর কর্মীরা আক্রান্ত হলেও সে সময় কোন নেতা পাশে এসে দাঁড়ায়নি। সালানপুরের বাসিন্দা বিক্রম নামে এক বিজেপি কর্মী বলেন জেলায় দলের নেতারা তৃণমূল নেতাদের সাথে গোপন আঁতাত করে চলছে। যোগ্যরা দলের সম্মান পাচ্ছে না। দুখীরাম চক্রবর্তী নামে অন্য এক কর্মী অভিযোগ করেন তিনি আগে কিষান মোর্চার সভাপতি ছিলেন তাকে সেই পথ থেকে হাঁটিয়ে অযোগ্য একজনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে। স্থানীয় এক বৃদ্ধা মহিলা বলেন স্বামী অসুস্থ ভিক্ষে করে খাই, স্থানীয় নেতাদের কাছে সাহায্য চেয়েও পাইনি। একে একে অন্য কর্মীরাও মিঠুন চক্রবর্তী, সুকান্ত মজুমদারদের সামনে ক্ষোভের কথা উগরে দেন। সবার অভিযোগ শোনার পর মিঠুন চক্রবর্তী বলেন, “দলের উপর ভরসা রাখুন, আপনাদের সবার অভিযোগের সমাধান করব”। পাশাপাশি তিনি বলেন, “তৃণমূল রাজ্যজুড়ে সন্ত্রাস করছে, আসলে ওদের দেওয়ার কিছু নেই তাই সন্ত্রাস করে মানুষের মুখ বন্ধ করে রাখতে চাইছে। তবে বেশিদিন এসব চলবে না”। রাজ্যে বিজেপির সরকার হবে বলে জানান মিঠুন চক্রবর্তী।

LEAVE A REPLY