গলায় কোপ মেরে এক যুবককে খুন করার ঘটনায় রহস্য,চাঞ্চল্য দেওয়ানদিঘিতে

0
52

নিজস্ব প্রতিনিধি,বর্ধমান: আপাতদৃষ্টিতে কোনো কারণ ছাড়াই গলায় কোপ মেরে এক যুবককে খুনের অভিযোগে আর এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পূর্ব বর্ধমানের দেওয়ানদিঘি থানার পুলিশ।এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, বুধবার সাত সকালে ধীমান ঘোষ নামে ওই অভিযুক্ত ব্যক্তি ধারালো অস্ত্রের কোপ মারে বিশ্বজিত দাস নামে ওই যুবককে। গলায় কোপ লাগা অবস্থায় যুবকটি কিছু দূর যাওয়ার পরেই রাস্তায় লুটিয়ে পরে। বাঁচার জন্য চিৎকার করতে থাকলেও কেউ এগিয়ে আসেনি। খবর পেয়ে কিছুক্ষণ পরে ঘটনাস্থলে আসে দেওয়ানদিঘী থানার পুলিশ। তাকে উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালের চিকিৎসকরা যুবককে মৃত বলে ঘোষণা করেন । মৃতের নাম বিশ্বজিৎ দাস, বাড়ি বর্ধমানের বিজয়রাম এলাকায়। ঘটনাটি ঘটেছে বর্ধমান-২ ব্লক ডেভেলপমেন্ট অফিস এবং দেওয়ানদিঘী থানার খুব কাছেই। ঘটনাস্থলে আসেন ডি.এস.পি অতনু ঘোষাল। আসেন অন্যান্য আধিকারিকরা। কী ভাবে খুন হল এবং কেন এই খুন তা নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। জানা গেছে, আক্রমণ করে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত। অভিযুক্ত বাড়িতে গেলে তাকে বাড়ির লোক তালাবন্ধ করে রাখে। পরিবার ও এলাকার লোক পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করেছে। জানা গেছে, এর আগে ছেলেটিকে তার বাবাকেও গলায় কোপ মেরেছিল। ডি এস পি ( হেড কোয়ার্টার) অতনু ঘোষাল জানান, এইভাবে আক্রমণ করার কারণ স্পষ্ট নয়। কী কারণে এই ঘটনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অভিযুক্তের পুরনো কোনো রেকর্ড আছে কী না তাও দেখা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY