৩০ বছর কাজ করেও ছাঁটাইয়ের আশঙ্কায় খনি নিরাপত্তাকর্মীরা,বিধায়কের আশ্বাসে আপাতত স্বস্তি

0
63

সংবাদদাতা,পাণ্ডবেশ্বরঃ কাজ থেকে ছাঁটাই করা চলবে না এই দাবিতে শনিবার বাঁকোলা এরিয়া অফিস গেটে বিক্ষোভ দেখায় ইসিএলের বেসরকারি নিরাপত্তা রক্ষীরা। পরে কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় বিধায়কের আশ্বাসে উঠে বিক্ষোভ। খনি সংস্থা ইসিএলের ১১ টি এরিয়ার বিভিন্ন কোলিয়ারিতে কয়লা সহ সংস্থার সম্পত্তি রক্ষার দায়িত্বে রয়েছে বেসরকারি সংস্থা নিযুক্ত নিরাপত্তা রক্ষীরা। আগামী দিনে সংস্থার নিজস্ব নিরাপত্তা রক্ষীরা এই দায়িত্ব পালন করবে। বেসরকারি নিরাপত্তা রক্ষীদের ধাপে ধাপে সরিয়ে দেওয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংস্থা। ছাঁটাই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে চলতি বছরের ১ এপ্রিল থেকে। ইতিমধ্যে দু-ধাপে বেশ কিছু নিরাপত্তা রক্ষীকে কাজ থেকে বসিয়ে দেওয়া হয়েছে। সংস্থা জানিয়ে ছিল ১ অক্টোবর থেকে সংস্থার নিজস্ব রক্ষীরা কাজ করবে। ছাঁটাই করা হবে বেসরকারি নিরাপত্তা রক্ষীদের। শুক্রবার সেই মর্মে সংস্থার হেড কোয়ার্টার থেকে বিভিন্ন এরিয়া অফিসে ছাঁটাইয়ের নোটিশ আসে। ঠিক দূর্গা পূজার প্রাক্কালে কাজ হারানোর আশঙ্কা তৈরি হয় বেসরকারি নিরাপত্তা রক্ষীদের মধ্যে। সেই আশঙ্কাতেই শনিবার বাঁকোলা এরিয়া অফিসের মূল ফটকের সামনে ধর্নায় বসেন নিরাপত্তার রক্ষীরা। নিরাপত্তারক্ষীদের পক্ষে রতন দে, মিন্টু তেওয়ারিরা জানান, দীর্ঘ কুড়ি ৩০ বছর ধরে নিরাপত্তা রক্ষীরা কাজের সাথে যুক্ত রয়েছেন। এমন অবস্থায় বেসরকারি নিরাপত্তারক্ষীদের ছাঁটাই করার সিদ্ধান্ত অমানবিক। এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতেই তাদের বিক্ষোভ ধর্ণা বলে জানান তারা। বিক্ষোভ চলাকালীন সেখানে পৌঁছান পান্ডবেশ্বরের তৃণমূল বিধায়ক নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী। তিনি বিক্ষোভকারী ও বাঁকোলা এরিয়া অফিসের আধিকারিকদের সাথে কথা বলেন।‌ পরে বিক্ষোভকারীদের আশ্বস্ত করে তিনি জানান আপাতত ছাঁটাই প্রক্রিয়া স্থগিত রাখা হয়েছে আগামী দু’মাসের জন্য। ১৪ অক্টোবর ইসিএল আধিকারিকদের সাথে এই বিষয়ে আলোচনা হবে। ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত কোনমতেই মানা হবে না। প্রয়োজনে বেসরকারি নিরাপত্তা রক্ষীদের বিকল্প কাজের ব্যবস্থা করতে হবে সংস্থাকে। ছাঁটাই প্রক্রিয়া স্থগিত ও বিধায়কের আশ্বাসে ধর্না কর্মসূচি প্রত্যাহার করে নেয় নিরাপত্তা রক্ষীরা।

LEAVE A REPLY