ধসে আতঙ্ক,ঘর ছেড়ে অস্থায়ী শিবিরে দিন কাটছে ১৫টি পরিবারের

0
37

নিজস্ব সংবাদদাতা,লাউদোহাঃ খনি গর্ভে বিস্ফোরণের জেরে ধস নেমেছে এলাকায়, ক্ষতি হয়েছে ঘর বাড়ির। দুর্ঘটনার আশঙ্কায় শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে ১৫টি পরিবার। দ্রুত পুনর্বাসন দেওয়া হোক দাবি ঘরছাড়া পরিবারের সদস্যদের। গত মাসের ৩০ আগস্ট দুর্গাপুর-ফরিদপুর (লাউদোহা) ব্লকের শীর্ষা গ্রামে ধসের ঘটনা ঘটে। ক্ষয়ক্ষতি হয় বেশ কয়েকটি ঘরবাড়ির। খনি সংস্থা ইসিএলের খনি গর্ভে তীব্র বিস্ফোরণের কারণেই এই ঘটনা বলে দাবি স্থানীয়দের। শীর্ষা গ্রামে কয়লা খনির কাছাকাছি রয়েছে বসতি এলাকা। সেখানে ধসের ঘটনাটি ঘটে। স্থানীয়দের দাবি রাজ্য সরকারের দেওয়া পাট্টা জমিতে তারা বাড়ি করে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছেন। গত মাসের ৩০ আগস্ট বিস্ফোরণে ঘরবাড়ি ক্ষয়ক্ষতি হওয়ায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে বাসিন্দাদের মধ্যে। বড় দুর্ঘটনার আশঙ্কায় খনি কর্তৃপক্ষ তড়িঘড়ি তাদের অন্যত্র ক্যাম্প করে বসবাসের ব্যবস্থা করে। ক্যাম্পে বর্তমানে রয়েছে ১৫টি পরিবার। ক্যাম্পে থাকা এক সদস্য জানান, গতকাল পর্যন্ত শিবিরে রান্না করা খাবার দেওয়া হতো সংস্থার পক্ষ থেকে। মঙ্গলবার থেকে রান্না করা খাবার পাঠানো বন্ধ করে দেয় সংস্থা। পরিবর্তে তাদের দেওয়া হচ্ছে চাল, ডাল, আলু, তেল। কিন্তু জ্বালানি না দেওয়ায় তারা রান্না করতে পারছে না। শিবিরে চরম দুর্ভোগে তাদের দিন কাটছে বলে অভিযোগ। খনি সংস্থা তাদের দ্রুত এলাকা ছেড়ে চলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে বলে দাবি করেন শিবিরে থাকা অন্য এক সদস্য। পাল্টা তিনি জানান, রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে এই জমি তাদের পাট্টা দেওয়া হয়েছে। পাট্টার সরকারি কাগজ তাদের সবার কাছে রয়েছে। তাই পুনর্বাসনের ব্যবস্থা সংস্থাকে করতে হবে, তা না হলে তারা ঘরবাড়ি ছেড়ে যাবেন না বলে সাফ জানান। গ্রামবাসীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ইসিএলের সংশ্লিষ্ট কোলিয়ারির কর্তৃপক্ষের কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

LEAVE A REPLY