পাচারের আগেই দুই পাচারকারী সহ প্রচুর টিয়া পাখি ধরা পড়ল বনদপ্তর হাতে

0
58

জয় লাহা, দুর্গাপুর,২৬ আগষ্টঃ রাতের অন্ধকারে গাড়ীতে করে টিয়া পাখি পাচার। গোপন সুত্রে খবর পেয়ে বনকর্মীদের অভিযানে ধরা পড়ল দুই পাচারকারী। উদ্ধার হয়েছে প্রচুর পাখি। আটক করা হয়েছে তাদের চারচাকা গাড়ীটি। বৃহস্পতিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে ১৯ নম্বর জাতীয় সড়কের ওপর পানাগড়ে। পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, ধৃতদের নাম আব্দুল কাদের ও মোহাম্মদ ফুলবা। দুজনেই পূর্ব বর্ধমানের বাসিন্দা। জানা গেছে, রাতের অন্ধকারে একটি চারচাকা গাড়ীতে টিয়া পাখি পাচার করা হচ্ছিল।   আসানসোল থেকে ওই পাখিগুলি বর্ধমানে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। গোপন সুত্রে খবর পেয়ে পানাগড় বাইপাসে হানা দেয় পুলিশ ও বনকর্মীরা। তল্লাশীতে তাদের গাড়ী থেকে খাঁচাবন্দি প্রচুর টিয়া পাখি উদ্ধার হয়। পানাগড় রেঞ্জ সুত্রে জানা গেছে, প্রায় ২০০টি টিয়া পাখি উদ্ধার হয়েছে। ধৃতদের বিরুদ্ধে বনপ্রানী সংরক্ষন আইনে মামলা দায়ের হয়েছে। উদ্ধার হওয়া পাখিগুলোকে কাঁকসা জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হবে। 

দুর্গাপুরের বিশেষ প্রতিনিধির সংযোজনঃ বনদপ্তরের পানাগড় রেঞ্জের রেঞ্জার সুভাষ চন্দ্র পাল বলেন ‘আসানসোল থেকে একটি সুইফ্ট ডিজায়ার গাড়িতে করে পাখিগুলি বর্ধমানে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। খবর পেয়ে বাঁশকোপা টোলপ্লাজায় গাড়িটিকে আটক করি আমরা। দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এদিন তাদের দুর্গাপুর মহকুমা আদালতে পেশ করা হয়।’ রাজ্যের অতিরিক্ত মুখ্য বনপাল কল্যাণ দাস বলেন, “আগে বিহার ও উত্তরপ্রদেশ থেকে কলকাতাগামী নাইট সার্ভিস বাসে পাখি পাচার হতো। একাধিক বাস বাজেয়াপ্ত করার পর এখন ছোট গাড়িতে করে পাখি পাচার করা হচ্ছে। বনদপ্তরের কর্মীদের তৎপরতায় একটি ছোট গাড়ি আটক করা হয়েছে”। 

LEAVE A REPLY