বাইক চালককে হেনস্থা ও মারধর পুলিশের,উত্তেজনা বেনাচিতি বাজারে

0
69

বিশেষ প্রতিনিধি,দুর্গাপুরঃ এক বাইক চালককে মারধরের অভিযোগ উঠল পুলিশের গাড়ির চালক ও এক পুলিশ কর্মীর বিরুদ্ধে। রবিবার সকালে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ায় বেনাচিতি বাজারে। অভিযুক্ত চালক ও পুলিশ কর্মীর শাস্তির দাবিতে বেনাচিতি বাজারে আনন্দগোপাল সরণি অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয় বাসিন্দারা। প্রায় আধ ঘন্টা পরে পুলিশি হস্তক্ষেপ অবরোধ উঠে যায়। মারধরের ঘটনায় আহত বাইক চালককে  চিকিৎসার জন্য স্থানীয় একটি নার্সিংহোমে নিয়ে যাওয়া হয়। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এদিন সকালে বেনাচিতি বাজারে বাইকের কাগজপত্র পরীক্ষা করছিলেন পুলিশকর্মীরা। সেই সময় রাস্তা দিয়ে বাইক নিয়ে যাচ্ছিলেন উত্তম রুইদাস নামে এক ব্যক্তি্। পুলিশের গাড়ির অস্থায়ী চালক উত্তমের বাইক আটক করে কাগজপত্র দেখতে চান। অভিযোগ, বাইকের কাগজপত্র সঠিক থাকা সত্ত্বেও উত্তমের কাছ থেকে পাঁচশো টাকা দাবি করে চালক। উত্তম টাকা দিতে অস্বীকার করে। এরপর ওই চালক ও এক পুলিশ কর্মী উত্তমের ওপর চড়াও হয়ে তাঁকে মারধর করে। টেনে হিঁচড়ে পুলিশের গাড়িতে তোলার চেষ্টা করা হয় উত্তমকে। ঘটনার প্রতিবাদে সরব হন স্থানীয় বাসিন্দারা। পুলিশের সঙ্গে বচসা শুরু হয় ক্ষুব্ধ বাসিন্দাদের। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায় পুলিশের গাড়ির চালক। এরপর বাসিন্দারা রাস্তা অবরোধ করেন। মারধরের ঘটনায় আহত উত্তম রুইদাস বলেন, ” মেয়ের জন্য জামা কিনতে এসেছিলাম বেনাচিতি বাজারে। পুলিশ আমাকে আটক করে বাইকের কাগজ দেখাতে চায়। আমি হেলমেট পড়ে ছিলাম এবং বাইকের কাগজ ঠিক ছিল। তারপরেও পাঁচশো টাকা চাইছিল। টাকা দিতে অস্বীকার করায় আমাকে প্রচন্ড মারধর করা হয়। টেনে গাড়িতে তোলার চেষ্টা করা হয়। পুলিশের দাবি মত টাকা না দেওয়ায় আমাকে মারধর করা হল।”

LEAVE A REPLY