প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় জীবনের নতুন দিশা দেখাতে সংখ্যালঘু অধ্যুষিত গ্রামে জেলা পুলিশের উদ্যোগ

0
216

নিজস্ব প্রতিনিধি,বাঁকুড়া: সমাজের সর্বস্তরের ছাত্র ছাত্রীদের প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সাফল্য এনে দিতে উত্তরণ কর্মসূচি উদ্যোগ নিল বাঁকুড়া জেলা পুলিশ। এর আগে জঙ্গলমহলের আদিবাসী অধ্যুষিত ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে সাড়া ফেলে দিয়েছে জেলা পুলিশের এই উত্তরণ কর্মসূচি, মিলেছে সাফল্য। সেই সাফল্যকে হাতিয়ার করে এবার বাঁকুড়ার ওন্দা থানা এলাকার সংখ্যালঘু অধ্যুষিত প্রত্যন্ত গ্রাম পুনিশোল গ্রামে ছাত্র ছাত্রীদের মুখে হাসি ফোটাতে উত্তরন প্রকল্পের উদ্যোগ নিল জেলা পুলিশ। বাঁকুড়া জেলা পুলিশ উত্তরণ কর্মসূচির মাধ্যমে জঙ্গলমহল থেকে শুরু করে মন্দির নগরী বিষ্ণুপুর সহ বাঁকুড়ার প্রত্যন্ত গ্রামের ছেলেমেয়েদের প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবার জন্য প্রশিক্ষণ দিয়ে একটা নজির সৃষ্টি করেছে। সেই সাফল্যকে হাতিয়ার করেই এবার বাঁকুড়ার ওন্দা থানার অন্তর্গত প্রত্যন্ত পুনিশোল গ্রামে উত্তরণ প্রকল্পের উদ্যোগ জেলা পুলিশের। একসময় সবার কাছে অন্যভাবে পরিচিত ছিল পুনিশোল গ্রাম। আর্থিক সংগতি না থাকায় অনেক বাবা মা তাদের ছেলেমেয়েদের পড়াশোনার খরচ বহন করতে পারতেন না।
অজ্ঞতা, অশিক্ষা,কুসংস্কার,বাল্যবিবাহ, অন্ধকার জগত হাতছানি গ্রাস করেছিল গ্রামকে। এই গ্রামের ছেলে মেয়েরা একটা সময় পড়াশোনার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল।কিন্তু যুগের পরিবর্তনের সাথে সাথে এই গ্রামের মানুষের চিন্তাধারার পরিবর্তন এসেছে। সেই পরিবর্তনের ধারাকে সাথে নিয়ে বাঁকুড়া জেলা পুলিশ এই গ্রামেও উত্তরন কর্মসূচি শুরু করলো। বাঁকুড়া জেলা পুলিশের উদ্যোগে “উত্তরণ” প্রকল্পের মাধ্যমে ওন্দা থানার পুনিশোল ফাঁড়িতে এদিন স্থানীয় শিক্ষিত যুবক যুবতী দের প্রতিযোগিতা মুলক পরীক্ষার প্রস্তুুতিতে সাহায্যের জন্য প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়।করা হয় একটি গ্রন্থাগার এর উদ্বোধনও।গতকাল সন্ধ্যায় প্রথমিক ভাবে চল্লিশ জন যুবক যুবতীর উপস্থিতিতে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই উত্তরণ প্রকল্পের উদ্বোধন হলো পুনিশোল গ্রামে। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাঁকুড়া জেলা পুলিশ সুপার ধৃতিমান সরকার,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিবেক ভার্মা, ডি এস পি ডি এন্ড টি গনেশ বিশ্বাস সহ অন্যান্য পুলিশ আধিকারিকরা। এদিন জেলা পুলিশ সুপার ধৃতিমান সরকার সরাসরি ছাত্র ছাত্রীদের সাথে কথা বলেন। তাদের ইচ্ছের কথা জানার পাশাপাশি সর্বত ভাবে ছাত্র ছাত্রীদের পাশে থাকার জন্য অঙ্গীকারবদ্ধ হন। জেলা পুলিশ সুপার ধৃতিমান সরকার জানান, সারা জেলা জুড়েই পুলিশের উদ্যোগে উত্তরণ প্রকল্পের কাজ চলছে।আগ্রহী ছাত্র ছাত্রীরা এই প্রকল্পের মাধ্যমে নিজের জীবনে প্রতিষ্ঠা লাভ করুক এটাই জলা পুলিশের লক্ষ্য। তাই উত্তরণ প্রকল্পের মাধ্যমে যুগোপযোগী প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় নমুনা প্রশ্নপত্র তুলে দেওয়া হবে পড়ুয়াদের হাতে। পড়ুয়াদের উচ্চশিক্ষায় সঠিক দিশা দেখাতে হবে কাউন্সিলিংয়ের ব্যবস্থা। ছাত্র ছাত্রীরাও এই ধরনের সুযোগ পেয়ে বেজায় খুশি।পুলিশের এই ধরনের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন পড়ুয়ারা।

LEAVE A REPLY