চাকরি দেওয়ার নাম করে টাকা আত্মসাতের চাঞ্চল্যকর পোস্টার তৃণমূল যুব সভাপতির বিরুদ্ধে

0
67

নিজস্ব প্রতিনিধি,বাঁকুড়াঃ তৃণমূল যুব সভাপতির বিরুদ্ধে চাকরি দেওয়ার নাম করে টাকা তোলার অভিযোগে পোষ্টার ঘিরে চাঞ্চল্য।বাঁকুড়া পুরুলিয়া জাতীয় সড়কের রাস্তার ধারে ভিকুরডিহি বাস স্ট্যান্ড সহ আশপাশের বেশ কয়েকটি জায়গায় আজ সকালে পোস্টার দেখতে পায় এলাকার মানুষজন।তৃণমূল যুব সভাপতি এর বিরুদ্ধে প্রাইমারিতে টাকা আত্মসাৎ করে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগে পোস্টারে। বাঁকুড়া এক নাম্বার ব্লকে ভিকুরডিহি বাস যাত্রী প্রতীক্ষালয় দেওয়ালে সাটানো ছিলো পোস্টার। পোস্টারে সাদা কাগজের উপর কালো কালিতে লেখা রয়েছে “প্রাইমারিতে চাকরি দেওয়ার নাম করে দলের কর্মীদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে আমাদের জেলা যুব সভাপতি সন্দীপ বাউরী ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা। এইসব চোর নেতাদের জন্যই আমাদের দলের এই অবস্থা। এই সব নেতারা দলটাকে শেষ করে দিচ্ছে। বিজেপির সাথে সেটিং করে দলের ক্ষতি করছে। এই নেতারা প্রতিটি অঞ্চলে টাকা তোলার জন্য এজেন্ট আছে। দলের কাছে অনুরোধ যাতে এই বিষয়টি খতিয়ে রাখা হয় এবং সঠিক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। ক্যাপশন লেখা রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস জিন্দাবাদ মমতা ব্যানার্জি জিন্দাবাদ অভিষেক ব্যানার্জি জিন্দাবাদ। আর এই পোস্টার দিয়েই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। স্থানীয় পথ চলতি মানুষজনের দাবি রাতের অন্ধকারে কে বা কারা পোস্টার দিয়েছে তারা জানেন না। তবে তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ করছেন তৃণমূলের দলের কর্মীরাই এই পোস্টারে সেটা স্পষ্ট। হয়তো টাকা নিয়ে থাকলেও নিতে পারেন তদন্ত হলেই বিষয়টা পরিষ্কার হবে এমনটাই দাবি স্থানীয়দের। যদিও যার বিরুদ্ধে অভিযোগ সেই তৃণমূল যুব সভাপতি সন্দীপ বাউরী দাবি এ সব বিজেপির অপপ্রচার কুৎসা ষড়যন্ত্র।দলকে বদনাম করতে বিজেপির লোকজন এই ধরনের পোস্টার দিচ্ছে এলাকায়। পোস্টারের বিষয়ে উচ্চতর নেতৃত্বকে জানাবেন, প্রয়োজনে থানার দ্বারস্থ হবেন বলে দাবি করেন জেলা যুব সভাপতি । বিজেপির দাবি চাকরির নামে টাকা তোলার ঘটনা একেবারে বাস্তব।ছোট-বড় বিভিন্ন তৃনমূল নেতাই  টাকা তোলার যুক্ত। তৃণমূল কর্মীরাই অভিযোগ তুলছে নেতারা টাকা তুলেছে।পার্থ চট্টোপাধ্যায় গ্রেফতার হওয়ার পর তারা বুঝতে পেরেছে আর টাকা দিয়ে চাকরি হবে, তাই পোস্টার দিয়ে টাকা ফেরৎ পাওয়ার চেষ্টা করছে তৃণমূল কর্মীরাই এর সাথে বিজেপির কোন যোগ নেই এটা তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব দাবী বিজেপির।

LEAVE A REPLY