রবিনসন স্ট্রীটের ছায়া এবার দুর্গাপুরে,ছেলের পচাগলা দেহ আগলে রেখে ছিলেন বৃদ্ধা

0
223

বিশেষ প্রতিনিধি,দুর্গাপুরঃ চলতি বছরের মার্চ মাসের প্রথম দিকে কলকাতার রবিনসন স্ট্রীটের ছায়া দেখা গিয়েছিল বর্ধমানের মেমারি থানার কৃষ্ণবাজার কলেজমোড় এলাকায়। বেশ কয়েকদিন ধরে দিদির পচাগলা দেহ নিয়ে একই বিছানায় রাত্রীযাপন করছিলেন বোন। প্রচন্ড দুর্গন্ধ পেয়ে এলাকার মানুষজন পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। পাশাপাশি মৃতার বোনেরও চিকিৎসার ব্যবস্থা করায় পুলিশ। এক মাস পার না হতেই রবিনসন স্ট্রীটের ছায়া এবার দেখা গেল দুর্গাপুরে। স্টিল টাউনশিপের এ-জোন অঞ্চলে সেকেন্ডারি রোডের বাসিন্দা বৃদ্ধা বেলারানী জানা গত তিন দিন ধরে তাঁর ছোট ছেলের মৃত দেহ আগলে রাখলেন। শুধু আগলে রাখা নয়, রীতিমত পরিচর্যা করেছেন। সোমবার সকালে বাড়ি থেকে দুর্গন্ধ বের হচ্ছিল। প্রতিবেশীরা গিয়ে দেখেন বেলারানীর ছোট ছেলে সুশীলের(৪০)দেহ পড়ে আছে ঘরে। দেহ ফুলে গেছে ও পচন ধরেছে। ফলে দুর্গন্ধ বেরোচ্ছে। ছেলের দেহ আগলে রেখেছেন বৃদ্ধা। প্রতিবেশীরা পুলিশে খবর দেন। দুর্গাপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে দেহটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়। বেলারানী জানিয়েছেন তাঁর ছেলে সুশীল কয়েকদিন ধরে অসুস্থ ছিল। কিন্তু ছেলে মারা গেছে তা বুঝতে পারেনি তিনি। উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ১০ জুন কলকাতার রবিনসন স্ট্রীটের একটি বাড়ির শৌচাগার থেকে উদ্ধার হয়েছিল ৭৭ বছরের এক ব্যক্তির অগ্নিদগ্ধ দেহ। সেই বাড়িতে গিয়ে পুলিশ জানতে পারে, মৃত ব্যক্তির ছেলে তাঁর দিদির  কঙ্কালের  সঙ্গে মাসের পর মাস ওই বাড়িতে থেকেছেন। দিদির কঙ্কালকে খেতেও দিতেন ভাই পার্থ দে। সেই সময় এই ঘটনায় সারা রাজ্যেই ব্যাপক সোরগোল পড়ে যায়। তারপর বিগত সাত বছরে প্রায় একই ধরনের ঘটনা বিক্ষিপ্তভাবে হলেও বিভিন্ন জায়গায় ঘটে চলেছে। যেমনটি এবার দেখা গেল দুর্গাপুরে।

LEAVE A REPLY