দুর্গাপুরে বৃদ্ধার মাথা ফাটিয়ে ছাদ থেকে ঝাঁপ পরিচারিকার, চাঞ্চল্য

0
108

জয় লাহা, দুর্গাপুর, ৩১ জুলাইঃ বৃদ্ধার মাথা ফাটিয়ে ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে পালানোর চেষ্টা পরিচারিকার। রক্তাত্ব অবস্থায় উদ্ধার বৃদ্ধা ও  পালাতে গিয়ে জখম পরিচারিকা। রক্তাত্ব অবস্থায় বাড়ীর চিলে কোঠায় স্টোর রুমে উদ্ধার বৃদ্ধা। গুরুতর জখম অবস্থায় বাড়ীর নীচে উদ্ধার পরিচারিকা। ঘটনার কারন নিয়ে বিস্তর রহস্যের দানা বেঁধেছে। রবিবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে দুর্গাপুর সিটিসেন্টার আলাউদ্দীন খান বীথি এলাকায়। আহত দুজনই দুর্গাপুরে এক বেসরকারী নার্সিংহোমে চিকিৎসাধীন। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।  ঘটনায় জানা গেছে, আহত বৃদ্ধার নাম অপর্না ভট্টাচার্য্য, বয়স সত্তোরের কোঠায়। অবসরপ্রাপ্ত নার্স তিনি। দুর্গাপুর সিটিসেন্টার ননকোম্পানীর আলাউদ্দীন খান বীথি এলাকায় থাকতেন। তাঁর স্বামী অরুন কুমার ভট্টাচার্য্য। তিনি সেইলের ডিএসপির কর্মী ছিলেন। বছর ছয়েক আগে অরুনবাবুর মৃত্যু হয়। অপর্নাদেবীর এক মেয়ে কর্মসুত্রে মুম্বইয়ে থাকেন। দুর্গাপুরের বাড়ীতে একাকী থাকেন অপর্নাদেবী। রবিবার সকাল সাড়ে ন’টা নাগাদ অপর্নাদেবীর আর্তনাদ শুনে আশপাশের লোকজন ছুটে যায়। প্রতিবেশীরা দেখেন বাড়ীর তিনতলায় চিলে কোঠায় স্টোর রুমে রক্তাত্ব অবস্থায় পড়ে অপর্না দেবী। মাথা দিয়ে গল গল করে রক্ত বেরিয়ে পড়েছে। সেসব দেখে পুলিশে খবর দেয় প্রতিবেশীরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌ্ঁছায় সিটি সেন্টার ফাঁড়ির পুলিশ। আহত অবস্থায় অপর্নাদেবী জানান,” বাড়ীর পরিচারিকা অপর্না কাঠের খিল দিয়ে মাথায় আঘাত করে। তারপর গলায় ওই কাঠ দিয়ে চেপে মারার চেষ্টা করে।” তার হাত থেকে বাঁচতে কোনভাবে চিৎকার শুরু করে। মহিলার আর্তনাদ শুনে আশপাশের বাসিন্দারা ছুটে আসে। মহিলার বয়ান শুনে বাড়ীর নীচে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে অপর্না নামে পরিচারিকাকে। পুলিশ আহত দুজনকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি নার্সিং হোমে ভর্তি করে। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। প্রশ্ন, ওই পরিচারিকা কেন ওই বৃদ্ধার ওপর আক্রমন করল? গোটা ঘটনায় বিস্তর রহস্যের দানা বেঁধেছে। স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, বছর পাঁচেক আগে ওই পরিচারিকা এলাকার একটি বাড়ীতে কাজের ফাঁকে আলমারি থেকে টাকা লোপাট করত বলে অভিযোগ। বিষয়টি সন্দেহ হওয়ায় গৃহকর্তা ঘরের ভেতর তিনদিকে তিনটি মোবাইল ক্যামেরা বসায়। আর তাতেই একদিন তার টাকা লোপাটের ছবি ধরা পড়ে। তবে ঘটনার কথা স্বীকার করে লোপাট করা টাকা ফেরত দিয়ে দেওয়ায় পুলিশে আর অভিযোগ করেননি ওই পরিবার। এদিনের রোহমর্ষক ঘটনায় রীতিমতো আতঙ্কিত শহরবাসী। এসিপি (দুর্গাপুর) তথাগত পান্ডে জানান,” আক্রান্ত বৃদ্ধার প্রাথমিক বয়ান অনুযায়ী পরিচারিকা তাকে কাঠের খিল দিয়ে মারধর করেছে। তারপর ছাদ থেকে ঝাপ দিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। দুজনেই গুরুতর আহত। সুস্থ হওয়ার পর ঘটনার কারন জানা যাবে। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।”  

LEAVE A REPLY