ফের অনুব্রত ঘনিষ্ঠ তৃণমূল বিধায়ক ও নেতাদের দুর্গাপুরে সিবিআইয়ের জেরা

0
156

বিশেষ প্রতিনিধি,দুর্গাপুরঃ গত কয়েকদিন ধরে বীরভূম,বর্ধমান ও বাঁকুড়া জেলার একাধিক তৃণমুল নেতাকে ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় তলব করেছে সিবিআই।  দুর্গাপুর এনআইটি কলেজে সিবিআইয়ের অস্থায়ী দপ্তরে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে তাদের। ইতিমধ্যে ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় বীরভূম জেলার একাধিক তৃণমূল নেতা সহ আউশগ্রাম ২ নম্বর ব্লক সভাপতিকে তলব করে দীর্ঘক্ষন জেরা করা হয়েছে। আউশগ্রাম ২ নম্বর ব্লক তৃণমূল সভাপতি অরূপ মিদ্দ্যা,বীরভূম জেলার মহম্মদ বাজার ব্লকের তৃণমূল সভাপতি তাপস সিনহা,সিউড়ি পুরসভার চেয়ারম্যান বিপ্লব দত্ত সহ বিধায়ক নীলাবতী সাহার স্বামী দেবাশীষ সাহা সহ মোট ছ’জনকে তলব করেছিল সিবিআই। শনিবার ফের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মন্ডল ঘনিষ্ঠ একাধিক তৃণমূল বিধায়ক ও নেতাকে তলব করল সিবিআই। ভোট পরবর্তী হিংসার মামলায় শনিবার দুর্গাপুরে এনআইটি কলেজে তলব করা হয় লাভপুরের বিধায়ক অভিজিৎ সিংহ, কেতুগ্রামের বিধায়ক শেখ শাহনাওয়াজ, তারাপীঠ মন্দিরের সেবাইত অচিন্ত ভট্টাচার্য, লাভপুর কলেজের প্রিন্সিপাল নিশিথনাথ চক্রবর্তী সহ আরও কয়েকজনকে। এরা প্রত্যেকে ২০২১ সালে ভোটের রেজাল্ট প্রকাশের পর অনুব্রত মন্ডলকে ফোন করেছিলেন। তারাপীঠ মন্দিরের সেবাইত অচিন্ত ভট্টাচার্য বলেন,”তৃণমূলের জয়ের পর আমি অনুব্রত মন্ডলকে ফোন করে অভিনন্দন জানিয়েছিলাম। অনুব্রত মন্ডলের ফোনের কললিস্টে আমার নম্বর পাওয়ায় তলব করা হয়েছিল।” কেতুগ্রামের বিধায়ক শেখ শাহনাওয়াজ বলেন,”রেজাল্টের দিন বেলা সাড়ে দশটার সময় আমি অনুব্রত মন্ডলকে ফোন করে জানিয়েছিলাম তৃতীয়বারের জন্য বিধায়ক নির্বাচিত হচ্ছি।  আমার ফোন নম্বর অনুব্রতর মোবাইলে কললিস্ট পাওয়াতে আমাকে ডাকা হয়েছিল।” গত এক মাস ধরে দুর্গাপুরে সিবিআইয়ের অস্থায়ী দপ্তরে একের পর এক তৃণমূল নেতাদের ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY