তৃণমূলের ঝান্ডা নিয়ে কেন্দ্রীয় বঞ্চনার প্রতিবাদ মিছিল আটকে দিল পুলিশ,প্রশ্ন কেন?

0
151

নিজস্ব প্রতিনিধি,জামুড়িয়াঃ  মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষিত কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর মত বিরোধ প্রকাশ্যে জামুড়িয়ায়। কেন্দ্রীয় সরকারের রাজ্যের প্রতি বঞ্চনা ১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা না দেওয়া, তারই প্রতিবাদ স্বরূপ তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিবাদ মিছিল আটকে দিল পুলিশ। যদিও এই বিষয় নিয়ে পুলিশের কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। ব্যাপক উত্তেজনা থাকায় মোতায়েন করা হয় বিশাল পুলিশবাহিনী। বিজু ব্যানার্জি, সন্দীপ সিনহা জানান, মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ঘোষণা করেছিলেন চলতি মাসের ৫ ও ৬ তারিখে পশ্চিম বাংলার প্রতিটি ব্লকে কেন্দ্রীয় সরকারের বঞ্চনার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ মিছিল করার জন্য। সেইমতো তারা মিছিলের আয়োজন করেছিলেন। কিন্তু মিছিল না করে তারা পথসভার মাধ্যমে মিছিলটি শেষ করেন। অপরদিকে অশোক চ্যাটার্জী জানান, উচ্চ নেতৃত্বের নির্দেশে তারা বাধ্য হয়ে মিছিলটি বন্ধ করেছেন। কয়েকদিনের মধ্যে তাদের সঙ্গে উচ্চ নেতৃত্ব বসবেন বলে জানান তিনি। অন্যদিকে জামুড়িয়ার বিধায়ক হরেরাম সিংকে ফোনে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি জানান, এটি তাদের দলীয় কর্মসূচি ছিল না। সিপিএম ও বিজেপির লোকজন তৃণমূলের ঝাণ্ডা নিয়ে মিটিং মিছিল করে থাকতে পারে। গতকাল তার নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে মিছিল করা হয়েছিল জামুরিয়া এলাকায়। তবে আজ কারা তৃণমূলের ঝাণ্ডা নিয়ে দলের নির্দেশ ছাড়াই মিছিল করছেন এ বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না। কারন তিনি বিধানসভার কাজে কলকাতায় আছেন। তবে ফোনে বিধায়ক এও জানান,জামুরিয়ায় কেন্দ্রীয় সরকারের বঞ্চনার বিরুদ্ধে মিছিল রবিবার হয়েছে। দলের নির্দেশ অনুযায়ী একটি ব্লকে একটি মিছিল হবে। ফলে আজ যারা মিছিল করার প্রস্তুতি নিয়েছিলেন তারা তৃণমূলের হতে পারে না। তবে এদিনের এই ঘটনায় মুচকি হাসছে বিরোধীরা। তৃণমূলের দলীয় ঝান্ডা নিয়ে একদল তৃণমূল কর্মী সমর্থক বলে নিজেদের পরিচয় দিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের ১০০ দিনের কাজের বকেয়া পাওনা টাকা মেটানোর দাবিতে ও  পশ্চিমবাংলার প্রতি বঞ্চনার প্রতিবাদে মিছিল করার প্রস্তুতি নিয়েছিল তবে তারা কারা? প্রশ্ন উঠছে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত নাম জানাতে অনিচ্ছুক এক পুলিশ আধিকারিক জানান, কি কারনে বন্ধ হলো সেটা তাদের জানা নেই। তবে তৃণমূল কংগ্রেসের উচ্চ নেতৃত্বের নির্দেশে এই মিছিল বন্ধ করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY